আজ ২০শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ও ৭ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ এবং ১১ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

লালমনিরহাটে শ্রী শ্রী জগন্নাথ দেবের রথযাত্রার শুভ সূচনা

  • In ধর্ম, সারাবাংলা
  • পোস্ট টাইমঃ ২০ জুন ২০২৩ @ ০৮:৫৭ অপরাহ্ণ ও লাস্ট আপডেটঃ ২০ জুন ২০২৩@০৯:৫৩ অপরাহ্ণ
লালমনিরহাটে শ্রী শ্রী জগন্নাথ দেবের রথযাত্রার শুভ সূচনা

জহুরুল হক জনি
স্টাফ রিপোর্টার।।

লালমনিরহাটে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম ধর্মীয় অনুষ্ঠান শ্রীশ্রী জগন্নাথ দেবের রথযাত্রা ব্যাপক আনন্দ ও উৎসবের মধ্যে দিয়ে শুভ সূচনা হয়েছে।

বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রাসহ নানা ধর্মীয় অনুষ্ঠানমালা ও আনন্দ মুখর পরিবেশে ৮ দিনব্যাপী শ্রীশ্রী জগন্নাথ দেবের রথযাত্রা মহোৎসব পালিত হবে। মঙ্গলবার (২০জুন) বিকেল সাড়ে ৩ টায় লালমনিরহাট আন্তর্জাতিক শ্রীশ্রী রাধা গিরীধারী জগন্নাথ দেবের (ইসকন) মন্দির (বানিয়ার দিঘি) থেকে কয়েক হাজার দর্শনার্থী নিয়ে রথযাত্রা বের হয়। পরে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে সার্বজনীন কাচারীবাড়ি দুর্গা মন্দিরে এসে শেষ হয়। সেখানে মাসির বাড়ি ৭ দিন থাকবে রথযাত্রা।

সনাতনী রীতি অনুযায়ী, প্রতি বছর চন্দ্র আষাঢ়ের শুক্লপক্ষের দ্বিতীয়া তিথিতে এই রথযাত্রা শুরু হয়। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বিশ্বাস, জগন্নাথ দেব হলেন জগতের নাথ বা অধীশ্বর। জগৎ হচ্ছে বিশ্ব আর নাথ হচ্ছেন ঈশ্বর। তাই জগন্নাথ হচ্ছেন জগতের ঈশ্বর। তার অনুগ্রহ পেলে মানুষের মুক্তি লাভ হয়। জীবরূপে তাকে আর জন্ম নিতে হয় না। এ বিশ্বাস থেকেই রথের ওপর জগন্নাথ দেবের প্রতি মূর্তি রেখে রথ নিয়ে যাত্রা করেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা।

এর আগে মঙ্গলবার ভোর থেকে লালমনিরহাট শ্রীশ্রী জগন্নাথ দেবের বানিয়ার দিঘি (ইসকন) মহা কৃষ্ণ প্রেম দাস বৃম্মচারি রথযাত্রার শুভ উদ্বোধন করেন। রথযাত্রা উপলক্ষে ইসকন মন্দির ৮ দিনের অনুষ্ঠান মালার আয়োজন করেছে। আগামী ২৭ জুন উল্টো রথযাত্রার মধ্যদিয়ে তাদের অনুষ্ঠান শেষ হবে। লালমনিরহাট শ্রীশ্রী রাধা গিরিধারি মন্দিরের পুরোহিত জানান, সোমবার ভোররাত সাড়ে ৪টায় মঙ্গল আরতির মধ্যদিয়ে তাদের অনুষ্ঠানমালা শুরু হয়। সকাল সাড়ে ৭টায় শ্রীশ্রী জগন্নাথ দেবের রাজবেশে দর্শন, গুরু পূজা ও জগন্নাথ লীলা পাঠ করা হয়। এরপর দুপুরে ভজন কীর্তন, জগন্নাথের মহিমা আলোচনা শেষে বেলা সাড়ে ৩টায় জগন্নাথ, বলদেব ও সুভদ্রা মহারাণীর রথে আরোহন হয়। এরপরেই বের করা হয় ঐতিহ্যবাহী রথযাত্রা।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় দিন থেকে অষ্টম দিন পর্যন্ত ইসকন মন্দির ও কালীমাতার মন্দিরে তুলসি আরতি, গৌর আরতি, নৃসিংহ স্তব অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া থাকবে বৈদিক নৃত্য, আলোচনা সভা এবং মহাপ্রসাদ বিতরণ। লালমনিরহাট সদর উপজেলা সাপটানা, বাহাদুর, বিডিআর গেট কালীবাড়ি হয়ে রথযাত্রাটি রাত ৬ টার দিকে রথবাড়ীতে নিয়ে গিয়ে রথের গাড়ি রাখা হবে।

এদিকে রথযাত্রা উপলক্ষে ঐতিহ্যবাহী রথের মেলারও আয়োজন করেছে রথবাড়ী। এলাকায় রাস্তার দুই পাশে সাত দিনের এ মেলার আয়োজন করা হয়েছে। রথযাত্রা উপলক্ষে এলাকাতেও রাস্তার পাশে বিভিন্ন খেলনার দোকান বসেছে। রথবাড়ীর রথযাত্রার পরিচালক শ্রীমান প্রেম দাস ব্রম্মচারির জানান, কোনও রকম খাজনা ছাড়াই আমাদের রথের মেলা চলছে। খুব আনন্দ মুখর পরিবেশে আমরা এই উৎসব উদযাপন করছি। দুরদুরান্ত থেকে নানা বয়সী নারী-পুরুষ, শিশু-কিশোরসহ ৩০ হাজারেরও অধীক দর্শন দর্শনার্থী রথযাত্রাতে অংশগ্রহণ করেছেন।

অনুষ্ঠানে রথযাত্রার পরিচালক শ্রীমান প্রেম দাস ব্রম্মচারির সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ উল্যাহ। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যাডঃ মতিয়ার রহমান, লালমনিরহাট সদর উপজেলা চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সুজন, লালমনিরহাট পৌর মেয়র মোঃ রেজাউল করিম স্বপন, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ লালমনিরহাট জেলা শাখার সভাপতি শ্রী হিরা লাল রায় ও সহ-সভাপতি শ্রী সুবল চন্দ্র রায়সহ হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দগণ উপস্থিত ছিলেন।

আগামী ২৭ জুন বিকেল ৩টায় বর্ণাঢ্য শোভা যাত্রার মধ্য দিয়ে উল্টো রথের যাত্রা দিয়ে এই উৎসব শেষ হবে।

নিউজ শেয়ারঃ

আরও সংবাদ

জনপ্রিয় সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আলোচিত সংবাদ

নিউজ শেয়ারঃ
শিরোনামঃ
Verified by MonsterInsights