আজ ২৩শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ও ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ এবং ১৫ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

ছুটি কাটিয়ে ঢাকামুখী মানুষ, এখনও রাজধানী ছাড়ছেন কেউ কেউ

  • In শীর্ষ
  • পোস্ট টাইমঃ ১ জুলাই ২০২৩ @ ০৬:১২ অপরাহ্ণ ও লাস্ট আপডেটঃ ১ জুলাই ২০২৩@০৬:১২ অপরাহ্ণ
ছুটি কাটিয়ে ঢাকামুখী মানুষ, এখনও রাজধানী ছাড়ছেন কেউ কেউ

।।বিশেষ প্রতিবেদক।।

টানা পাঁচ দিনের ঈদের ছুটি আনুষ্ঠানিকভাবে শেষ হচ্ছে আজ শনিবার (১ জুলাই)। রোববার (২ জুলাই) খুলে যাচ্ছে অফিস-আদালত। ফলে চাকরিজীবীদের কাজে যোগ দিতে হলে আজই কর্মস্থলে ফিরতে হচ্ছে। রাজধানীর বাস, ট্রেন, লঞ্চ টার্মিনাল ঘুরে দেখা গেছে, কর্মস্থলে মানুষ ফিরতে শুরু করেছে। অতিরিক্ত যাত্রীর চাপ ও গাড়ি সংকট না থাকলেও যাত্রীরা কোনো রকম ভোগান্তি ছাড়াই ঢাকা ফিরতে পারছেন। এদিকে মানুষ যেমন ঢাকামুখী দেখা গেছে, তেমনি ঈদের তৃতীয় দিনে ঢাকা ছাড়তেও দেখা গেছে। যাওয়া-আসা দুইদিকেই যাত্রী পেয়ে সন্তুষ্ট পরিবহন সংশ্লিষ্টরাও। তারা বলছেন, গত কয়েকদিন শুধু ঢাকা ছাড়ার যাত্রীর চাপ ছিল। ফেরার পথে গাড়িগুলো একরকম খালি আসত। এখন যাওয়া ও আসায় বেশ ভালো যাত্রী আছে।

সকালের দিকে রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে ঘরমুখো যাত্রীর চাপ ছিল কম। তবে দুপুরের পর থেকে সেই চিত্র পাল্টে যায়। দুপুরের পর স্টেশনে প্রবেশ করা প্রত্যেকটি ট্রেনেই যাত্রী ছিল অনেক বেশি। রাজধানী ফেরা মানুষজন বলছেন, ঈদের ছুটি শেষে আবারও জীবীকার তাগিদে রাজধানীতে ফিরতে হচ্ছে। রোববার (২ জুলাই) সরকারি অফিস আদালত খুলবে। তাই যাত্রা পথের ভোগান্তি এড়াতে শনিবার রাজধানীতে ফিরে আসতে হচ্ছে। রেলওয়ে কর্মকর্তারা বলছেন, যাত্রীদের মূল স্রোত আসবে আগামীকাল।

রাজশাহী থেকে ঢাকায় ফিরেছেন একটি বেসরকারি ব্যাংকের কর্মকর্তা জহিরুল ইসলাম। তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেন, কাল ব্যাংক খোলা। তাই আজকে ঢাকায় ফিরতে হয়েছে। আগামী ৬ জুলাই পর্যন্ত ছেলে-মেয়েদের স্কুল বন্ধ থাকায় পরিবারের কেউ আসেনি। তারা আগামী সপ্তাহে আসবে। ট্রেনে করে চট্টগ্রাম থেকে রাজধানীতে ফিরেছেন সরকারি একটি অফিসের তৃতীয় শ্রেণির চাকরিজীবী ইয়াকুব আলী। তিনি বলেন, নির্ধারিত ছুটি শেষে সঠিক সময়ে অফিসে উপস্থিতি হতে হয়। কাল যেহেতু সবাই আসবে তাই ট্রেনে ভিড় হবে বেশি। এ জন্য আজই ঢাকায় চলে এসেছি।

কেবল ফেরাই নয়। অনেকে এখনও শেকড়ে ফেরার চেষ্টায় রয়েছেন। বেলা ৩টার কালনী এক্সপ্রেসে করে সিলেটে যাবেন বৃদ্ধ হারুন আলী ও তার স্ত্রী খাদিজা। ঈদের সময় বাড়ি না যাওয়ার কারণ কী জানতে চাইলে তিনি বলেন, ঈদের সময় ট্রেনে অনেক ভিড় থাকে। তাছাড়া এখানে থাকার কারণে কিছু মাংস চেয়ে নিয়েছি মানুষের কাছ থেকে। বাড়িতে গেলে তো এগুলো পেতাম না। তাই আজকে বাড়ি যাচ্ছি।

এদিনরাজধানীর অন্যতম প্রবেশদ্বার সায়দাবাদ বাস টার্মিনালে দেখা গেছে, দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে যেসকল বাস আসছে তাতে যাত্রীদের তেমন চাপ নেই। তবে প্রতিটি বাসই যাত্রী পূর্ণ করে নিয়ে ফিরছে। বরগুনা থেকে ফিরে আসা যাত্রী সাইফুল ইসলাম সংবাদমাধ্যমকে বলেন, কাল অফিস খুলছে তাই আজই ফিরতে হলো ঢাকায়। কাল (রোববার) সকালেও ফিরতে পারতাম। কারণ পদ্মা সেতু আমাদের যাতায়াত সহজ করে দিয়েছে। কিন্তু অফিস খোলা সময়ে গাড়িতে প্রচুর ভিড় থাকতে পারে ভেবে আগেই চলে এসেছি।

দশমিনা থেকে আসা খলিলুর রহমান বলেন, পরিবার রেখে এসেছি বাড়িতে। পরের সপ্তাহে গিয়ে নিয়ে আসব। কাল অফিস খুলছে তাই আজই আসতে হচ্ছে। বাস চালক আশিকুর রহমান জানান, সকাল থেকে সব গাড়ি যাত্রীপূর্ণ করেই এলাকা থেকে সায়দাবাদে এসেছে। লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা আল-আরাফাহ পরিবহনের যাত্রী মো. সবুজ জানান, স্বাভাবিক সময়ে ভাড়া ৪০০ টাকা। ঈদে ৫০০ করে রাখা হয়েছে। তবে, যাত্রী সংকট নেই, আবার অতিরিক্তও না। যাত্রী চাপ না থাকায় ভ্রমণ ভোগান্তিহীন হয়েছে।

পদ্মা এক্সক্লুসিভের যাত্রী মনিরুজ্জামান বলেন, আমরা সপরিবারে চাঁদপুর থেকে ঢাকা এসেছি। সকাল সকাল রওনা হওয়ায় গাড়ি পেতে বেগ পেতে হয়নি। তবে যাত্রী ভরপুর। গাড়ির সিট খালি আসেনি। ভাড়া স্বাভাবিক সময়ে ৩৫০ টাকা, ঈদে ৪৫০ টাকা রেখেছে।

তবে সদরঘাটের চিত্র ছিল ভিন্ন। সকালে যে দূর পাল্লার লঞ্চগুলো ঢাকায় নোঙর করেছে তার বেশিরভাগ যাত্রী কম ছিল। সুরভী লঞ্চের কর্মকর্তা হাসিবুর রহমান জানান, লঞ্চগুলো যেহেতু রাতে ছেড়ে আসে সেহেতু যাদের অফিস কাল খোলা, তারা আজ শনিবার রাতে লঞ্চে উঠে সকালে ঢাকা পৌঁছাবেন। তাছাড়া পদ্মা সেতু হওয়ায় যাতায়াতের দূরত্ব কমে এসেছে, সময় কম লাগছে।যে কারণে আজ যাত্রী কম দেখতে পাচ্ছেন। তবে চাঁদপুর, হাতিয়া, মুন্সিগঞ্জ রুটের লঞ্চগুলোতে তুলনামূলক যাত্রী সংখ্যা বেশি ছিল। আবার কেউ শান্তিতে ঘুমিয়ে আসতে চাইলে রাতে লঞ্চে ভ্রমণ করবেন।

নিউজ শেয়ারঃ

আরও সংবাদ

জনপ্রিয় সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আলোচিত সংবাদ

নিউজ শেয়ারঃ
শিরোনামঃ
Verified by MonsterInsights