আজ ১৮ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ও ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ এবং ১২ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

বিটিভি’র দেয়ালে ম্যুরাল

  • In ফেসবুক কর্ণার
  • পোস্ট টাইমঃ ২৭ মে ২০২৩ @ ০৬:৫২ পূর্বাহ্ণ ও লাস্ট আপডেটঃ ২৭ মে ২০২৩@০৬:৫৩ পূর্বাহ্ণ
বিটিভি’র দেয়ালে ম্যুরাল

গত দুই বছর আগে ( ২৭শে মে ২০২১) কাওসার চৌধুরী তার ফেসবুকে এই লেখাটি পোষ্ট করেন, আজ আবারও তিনি শেয়ার করেছেন তার স্মৃতিগাথা কথা। কাওসার চৌধুরীর পোষ্টটি নিচে হুবাহু দেওয়া হল।

বাংলাদেশ টেলিভিশনের প্রধান ফটক দিয়ে ঢুকতে গেলে- হাতের ডানে পড়বে ম্যুরালটি। সীমানা প্রাচীরের বড়ো একটি অংশে আনুমানিক ৩৫ ফুট বাই ২০ ফুট জায়গা নিয়ে শিল্পকর্মটি করা হয়েছে। ম্যুরালটির প্রধান আকর্ষণ- আমাদের জাতীয় সঙ্গীত। পুরো জাতীয় সঙ্গীতটিই ওখানে খচিত আছে।

ছবি- কাওছার চৌধুরী

ম্যুরালটির মূল পরিকল্পনা মুস্তফা মনোয়ারের। তিনি তখোন বিটিভি’র মহা পরিচালক। বিটিভি’র অবসরপ্রাপ্ত শিল্প নির্দেশক আব্দুল মান্নান জানালেন- ১৯৮৯ সালে বাংলাদেশ টেলিভিশনের ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে এই ম্যুরালটি স্থাপন করা হয়েছিল। শিল্পী আব্দুল মান্নান নিজেও এই ম্যুরালের একজন অন্যতম শিল্পী।

ছবি- কাওছার চৌধুরী

শিল্পী মুস্তফা মনোয়ারের নেতৃত্বে এই ম্যুরাল অংকনে অংশ নিয়েছিলেন শিল্পী আব্দুল মান্নান, আনোয়ার হোসেন, মহিউদ্দিন ফারুক, রেজাউল করিম, এ কে এম মাহতাবসহ আরো দু’একজন শিল্পী- যাঁরা সেই সময়ে বাংলাদেশ টেলিভিশনের শিল্প নির্দেশক ছিলেন।

ছবি- কাওছার চৌধুরী

ম্যুরালটি মূলত সিমেন্টের উপরেই আঁকা (খোদাই করা), অন্যকোন রঙ ব্যবহার করা হয় নি! এখানে অন্যকোন রঙ ব্যবহার ‘না করাটাই’ এই শিল্পকর্মটির নান্দনিক একটি বৈশিষ্ট বলে মনে করি। সিমেন্টের ‘রঙ’টিই- এই জনপদের উর্বরা এটেল মাটির একটি আমেজ এনে দেয়। খুব কাছ থেকে দেখলে মনে হয়- এইতো আমার নদীমাতৃক দেশের এটেল মাটির প্রলেপ; চোখ বুঁজে গন্ধ নিলেই যা থেকে জলে ভেজা মাটির সোঁদা সোঁদা গন্ধ ভেসে আসে নাকে, বুকের মধ্যিখানে! মনটি ভরে যায়!

ছবি- কাওছার চৌধুরী

শিল্পী আব্দুল মান্নান বলেন-
“ওস্তাগার (রাজমিস্ত্রি) এসে দেয়ালের এক একটি অংশে নরম সিমেন্ট লাগিয়ে দিতো, আর আমরা খুব দ্রুত আমাদের কাজটি করে যেতাম। আনুমানিক ৮/১০টি সেশন লেগেছিল এই কাজটি সম্পন্ন করতে”।

ছবি- কাওছার চৌধুরী

এই ম্যুরালটির অন্যতম আকর্ষণ আমাদের জাতীয় সঙ্গীত হলেও- এর ব্যাকগ্রাউন্ড’টি কিন্তু বেশ তাৎপর্যবহুল এবং চমকপ্রদ। এই ম্যুরালের ভিত্তি হিসেবে উদ্ভাসিত হয়েছে হাজার বছরের বাঙালি সংস্কৃতির প্রবাহমান ধারা। বাঙলার প্রকৃতি, হাজার বছরে এই জনপদের যাপিত জীবন উঠে এসেছে শিল্পীদের কর্মে। মহান ভাষা আন্দোলনকে বেছে নেয়া হয়েছে এর অন্যতম শক্তি হিসেবে।

বাঙলার বাড়িঘর, কুমার কামার জেলে তাঁতী, বাঙলার বাউল, নদ নদী প্রকৃতি- সবকিছুরই উপস্থিতি আছে আনুপাতিক হারে। ম্যুরালে খচিত- ‘মায়ের কোলে শিশুর প্রথম পাঠ’- এক টানে দর্শকদের নিয়ে যায় তার শৈশবে, নিজ নিজ গ্রামে- শেকড়ের কাছে। মনে পড়ে সেই গানের কথাগুলো- ‘মনে আছে সন্ধ্যাবেলার সময় হল প্রদীপ জ্বালার, তারই আলোয় আমরা ক’জন শুনছি কথা মণিমালার; আহা মায়ের গলায় মিষ্টি সুরে……’!

ছবি- কাওছার চৌধুরী

এর পাশাপাশি-
ম্যুরালটিতে আছে দ্রোহ। আছে প্রতিবাদ, প্রতিরোধ- লড়াই সংগ্রামে্র প্রতিচ্ছবি। আছে মহান মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতা। আছে শহীদ মিনার; স্মৃতিসৌধের উপস্থিতি। সবমিলে- কাজটি আমার কাছে অনন্যসাধারণ মনে হয়েছে। ম্যুরালের সাথে সংশ্লিষ্ট সকল সৃষ্টিশীল মানুষকে আমি অভিনন্দন জানাই।

তবে একটি ব্যাপার ভেবে খুব বিস্মিত হই- ম্যুরালটিতে এতকিছু আছে কিন্তু বঙ্গবন্ধু নেই! ভাষা আন্দোলন, পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে স্বাধীকার আন্দোলন, ষাটের দশকের আন্দোলন, মহান মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতা, জাতীয় স্মৃতিসৌধ, জাতীয় সঙ্গীত- সবই আছে; কিন্তু এতকিছুর মূল স্থপতি- জাতির পিতার কোন অস্থিত্ব নেই এই ম্যুরালে!

যিনি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, যিনি এই জনপদে শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ সন্তান, যাঁর নেতৃত্বে পাকিস্তানি দুঃশাসনের বিরুদ্ধে ২৩ বছর লড়াই করলো বাঙালি, একাত্তরের ৭ মার্চে যাঁর একটি অঙ্গুলির নির্দেশে দেশের ৩০ লাখ মানুষ প্রাণ দিয়ে নয় মাসে স্বাধীনতা অর্জন করলো, সেই শালপ্রাংশু মানুষটি- বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কোন চিহ্ন ওই ম্যুরালে নেই! ব্যাপারটি যেমন বিস্ময়ের তেমনি প্রচন্ড বেদনার!

তবে এটাও সত্যি-
এই ম্যুরালটি নির্মিত হয়েছে স্বৈরাচারী সামরিক শাসক এরশাদের শেষ সময়ে। সেই ‘নষ্ট সময়ে’ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে যথাযথভাবে কোথাও উপস্থাপন করা হবে- তেমনটি আশা করাটাও অবশ্য বোকামী!

আমার একটি সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব আছে।
বাংলাদেশ টেলিভিশন-ভবনের ভেতরে প্রবেশমুখে যে গাড়ি বারান্দা- তার উল্টোদিকের বাগানে কোন যথাযথ জায়গায় বঙ্গবন্ধুর একটি আ-বক্ষ ভাষ্কর্য স্থাপন করা হোক। জানি না, আপনারা কি বলবেন!
————————————
এই ছবিগুলো আমিই তুলেছিলাম মোবাইল ফোনের ক্যামেরায়।

নিউজ শেয়ারঃ

আরও সংবাদ

জনপ্রিয় সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আলোচিত সংবাদ

নিউজ শেয়ারঃ
শিরোনামঃ
Verified by MonsterInsights