আজ ২৩শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ও ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ এবং ১৫ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

ডুমুরিয়ায় ছাদ বাগান করে আলোড়ন সৃষ্টি করলেন সাংবাদিক মাহতাব

  • In বিশেষ সংবাদ
  • পোস্ট টাইমঃ ১৬ জুলাই ২০২৩ @ ০৩:৩১ অপরাহ্ণ ও লাস্ট আপডেটঃ ১৬ জুলাই ২০২৩@০৩:৩১ অপরাহ্ণ
ডুমুরিয়ায় ছাদ বাগান করে আলোড়ন সৃষ্টি করলেন সাংবাদিক মাহতাব

সজল সরকার
খুলনা(চুকনগর)প্রতিনিধি।।

খুলনার ডুমুরিয়ায় বাড়ির ছাদে পুষ্টি বাগান করে এলাকায় সাড়া ফেলেছেন সাংবাদিক শেখ মাহতাব হোসেন। তিনি সাংবাদিকতার পাশাপাশি ছাদে টব, ড্রাম, প্লাস্টিকের বক্স ও ইটের তৈরি হালকা দেওয়ালের মাঝে অর্ধশত প্রজাতির সবজি ও ফলসহ বিভিন্ন গাছের বাগান করেছেন। বাগানে উৎপাদিত ফল নিজের পরিবারের চাহিদা মিটিয়ে প্রতিবেশীদের মাঝে বিতরণ করেন। অতিরিক্ত ফলন হলে বাজারে বিক্রি করে বাড়তি আয় করছেন।

সরজমিনে খুলনা জেলার ডুমুরিয়া উপজেলার খর্নিয়া ইউনিয়নের টিপনা নতুন রাস্তায় শেখ মহতাব হোসেনের বাড়িতে যেয়ে দেখা যায়। সাংবাদিকতার পাশাপাশি কাজের ফাঁকে নিজ বাড়ির ছাদে ফুল, ফল, শাক, সবজি, মসলা ও ফলের বাগান করেছেন। এছাড়াও মৎস্য চাষের পাশাপাশি ঘেরের ভেঁড়িবাঁধে আম, মালটা, কমলা, ড্রাগন, পেয়ারা, আমড়াসহ বিভিন্ন ফল ও এবং সবজির মধ্যে টমেটো, বারোমাসি শিম, লাউয়ের চাষ করেছেন। তিনি বলেন- কোনো প্রকার রাসায়নিক সার ব্যবহার না করে, নিজে জৈব সার উৎপাদন করে নিরাপদ ফল ও সবজি চাষাবাদ করি। তিনি আরও বলেন, আমি বেশ কয়েকবছর যাবত ছাদবাগান করেছি। আমি সারাবছরই বিভিন্ন ধরনের ফুল, ফল ও শাক-সবজির চাষ করি। সাংবাদিকতার পাশাপাশি এই বাগানটি গড়ে তুলেছি। ছাদে উন্নত জাতের আম, মালটা, কমলা, ড্রাগন, পেয়ারা, আমড়া, সুইজার আদা এবং সবজির মধ্যে টমেটো, বারোমাসি ,শিম, মিষ্টি লাউ, বেগুন, টমেটো, পেঁপে, আমড়া, মরিচ ও অ্যালোভেরা, ঝিঙা, মরিচ, বারোমাসি মরিচ, করলা, ডাটাসহ বিভিন্ন শাক-সবজি, ফুল-ফল রোপণ করে চাষ করে আসছেন।

তিনি বলেন- ছাদ বাগানে উৎপাদিত ফুল-ফল ও শাক-সবজি একদিকে যেমন নিজের পরিবারের নিরাপদ খাদ্য ও পুষ্টির চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি অন্যদেরকে ছাদ বাগান করতে উৎসাহিত করে আসছি। কথা হয় আরও এক ছাদ বাগানি আব্দুল লতিফের সঙ্গে তিনি বলেন, আমি শেখ মাহতাব হোসেনের দেখাদেখি আগ্রহী হয়ে ছাদ বাগান করেছি এবং ছাদ বাগান থেকে উৎপাদিত সবজি ও ফল আমার পরিবারের পুষ্টি চাহিদা মিটছে। শেখ মাহতাব হোসেনের দেখাদেখি অনেকে ছাদ বাগান করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন।

ইতোমধ্যে ডুমুরিয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কর্মকর্তা মোঃ ইনসাদ ইবনে আমিন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা মোঃ ওয়ালিদ হোসেন ও আরাফাত জামিল, উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ ইকবাল হোসেন ও মিতা পাল শেখ মাহতাব হোসেনের ছাদ বাগান পরিদর্শন করেছেন।

ডুমুরিয়া উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মোঃ ইনসাদ ইবনে আমিন বলেন, শহরের মতো গ্রামেও এখন বড় বড় বিল্ডিং তৈরী হচ্ছে। ফলে কমে যাচ্ছে চাষাবাদের জমির পরিমান। বাড়ির মালিকরা ছাদে বাগান করে বিভিন্ন ধরনের ফল, ফুল ও শাক-সবজি চাষ করে নিজেদের চাহিদা পূরণের চেষ্টা করছেন। বাড়ির ছাদে বাগান করায় ছাদের উপযুক্ত ব্যবহারের পাশাপাশি পারিবারিক পুষ্টি চাহিদা মিটবে ও বাড়তি আয়ের পথ সৃষ্টি হবে।

নিউজ শেয়ারঃ

আরও সংবাদ

জনপ্রিয় সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আলোচিত সংবাদ

নিউজ শেয়ারঃ
শিরোনামঃ
Verified by MonsterInsights