আজ ২০শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ও ৭ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ এবং ১১ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

লোহাগড়ায় মানববন্ধন ও নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীকে স্বারকলিপি পেশ

লোহাগড়ায় মানববন্ধন ও নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীকে স্বারকলিপি পেশ
ছবি- বিডিহেডলাইন্স

।।নড়াইল প্রতিনিধি।।

নড়াইলের লোহাগড়া পৌরসভা কর্তৃক নির্মিত সড়কের ইট তুলে দু’জন সরকারী কর্মকর্তার নেতৃত্বে তাদের সহযোগীরা প্রভাব খাটিয়ে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করায় পাঁচটি পরিবারকে অবরুদ্ধ করবার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে ভূক্তভোগীরাসহ গ্রামবাসীরা।

মঙ্গলবার(২০জুন) বেলা ১১টায় লোহাগড়া উপজেলা পরিষদের মূল ফটকের সামনের সড়কে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধন শেষে প্রতিকার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্বারকলিপি প্রদান করা হয়।

মানববন্ধনে ভূক্তভোগীরাসহ বক্তারা অভিযোগ করেন, লোহাগড়া পৌরসভার লক্ষীপাশা আদর্শপাড়ায় প্রায় ১২ বছর আগে পৌর কর্তৃপক্ষ জনসাধারণের চলাচলের জন্য ইটের সলিং দিয়ে একটি সড়ক নির্মাণ করে দেয়। কিন্তু গত পহেলা মে গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর উপজেলার সব রেজিষ্ট্রার নাজনীন জাহান এবং তার স্বামী বিটিআরসি’র সহকারী পরিচালক মোঃ আলী কায়ছার সুমন ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে পৌরসভা কর্তৃক নির্মিত সড়কের ইট তুলে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করেন। ফলে ৫টি পরিবারের অন্তত ৫০ জন সদস্য অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন। রাস্তা বন্ধে এলাকাবাসী প্রতিবাদ জানালেও নাজনীন জাহান ও স্বামী মোঃ আলী কায়ছার সুমন কোন ধরনের মিমাংসা করতে হয় না। পরে এলাকাবাসী সম্প্রতি মানুষজনের চলাচলের জন্য নিজ উদ্যোগে সড়ক নির্মাণ করে। কিন্তু গত ১৯ জুন সাব-রেজিষ্ট্রার ও তার স্বামী মুকসুদপুর উপজেলা থেকে ৩০-৪০ জন বহিরাগত এনে সড়কটি ভেঙ্গে ফেলে এবং মানুষের চলাচলের সড়ক বন্ধ করে প্রাচীর নির্মাণ করে। ফলে ফের মানুষজন বাড়ির মধ্যে অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ভূক্তভোগী শেখ সিরাজ নুর, মোঃ জাকারিয়া ইসলাম, শেখ রাসেল, বিল্লাল নুর, রানু বেগম, আকলিমা বেগম, স্কুল ছাত্র অনন্ত প্রমুখ।

মানবববন্ধন শেষে প্রতিকার চেয়ে লোহাগড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্বারকলিপি প্রদান করা হয়। অভিযুক্ত মোঃ আলী কাওছার ও তার স্ত্রী নাজনীন জাহান দম্পতির সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করে পাওয়া যায়নি। লোহাগড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আজগর আলী এ বিষয়ে বলেন, ইতিমধ্যে জেলা প্রশাসক মহোদয় একটি নির্দেশনা দিয়েছেন। সরেজমিনে তদন্ত করে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করবো।

লোহাগড়া উপজেলা চেয়ারম্যান সিকদার আব্দুল হান্নান রুনু বলেন, দুর্বলের উপর সবলের প্রভাব খাটানোর বিষয়টি আমি আগেই শুনেছি। জনগণের অধিকার খর্ব করে কিছুই করা যাবে না। আইনের মধ্যে থেকে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করবো

নিউজ শেয়ারঃ

আরও সংবাদ

জনপ্রিয় সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আলোচিত সংবাদ

নিউজ শেয়ারঃ
শিরোনামঃ
Verified by MonsterInsights