আজ ১৮ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ও ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ এবং ১২ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

৪০ দফা ইশতেহারে পরিচ্ছন্ন স্মার্ট খুলনা গড়ার প্রতিশ্রুতি আব্দুল খালেকের

  • In রাজনীতি, সারাবাংলা
  • পোস্ট টাইমঃ ৬ জুন ২০২৩ @ ০৪:০৮ অপরাহ্ণ ও লাস্ট আপডেটঃ ৬ জুন ২০২৩@০৪:০৮ অপরাহ্ণ
৪০ দফা ইশতেহারে পরিচ্ছন্ন স্মার্ট খুলনা গড়ার প্রতিশ্রুতি আব্দুল খালেকের

স্টাফ রিপোর্টার

।।মোঃ বাইজিদ।।

খুলনাকে পরিকল্পিত পরিচ্ছন্ন স্মার্ট সিটি হিসেবে গড়ে তুলতে ৪০দফা নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেক।

তিনি ইস্তেহার ঘোষণার আগে গত পাঁচ বছরের বাস্তবায়ন করা উন্নয়ন প্রকল্পের বর্ণনা দেন। তিনি বলেন, বৈশ্বিক মহামারী কোভিড ১৯ সংক্রমনের কারণে দেশের সকল কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়ে। যা প্রায় ৩বছর স্থায়ী ছিল। সে কারণে ইচ্ছা থাকার সত্বেও যত সময় বিশাল এই কর্মযজ্ঞ সম্পূর্ণ করা সম্ভব হয়নি। ফলে নগরবাসীকে হয়তো কিছুটা দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে অনিচ্ছাকৃত এবং অনাকাঙ্ক্ষিত। এই বিলম্বের জন্য নগরবাসীর কাছে দুঃখ প্রকাশ করছি। তবে চলমান উন্নয়ন কাজ সমাপ্ত হলে খুলনা আধুনিক সুযোগ-সুবিধা একটি স্বাস্থ্যকর নগরীতে পরিণত হবে, ইনশাল্লাহ।

তিনি আরো বলেন, আগামী ১২জুন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হিসেবে আমি নতুন প্রতিশ্রুতি ও অঙ্গীকার নিয়ে আমার নির্বাচনীয় ইশতেহার তুলে ধরছি। কেসিসি’কে ঘিরে আমার নতুন চিন্তা ভাবনা ও পরিকল্পনা আপনারা আন্তরিকভাবে গ্রহণ করবেন বলে প্রত্যাশা করি।

তালুকদার আব্দুল খালেকের ৪০দফা ইশতেহারের প্রথমেই রয়েছে পরিচ্ছন্ন সবুজ ও পরিবেশবন্ধন খুলনা। বিষয়টি ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন- রাস্তাঘাট বাসা বাড়ি নির্মাণ এবং নগরীর পরিকল্পনায় সবুজকে প্রাধান্য দেওয়া হবে। সবুজ খুলনা গড়ে তুলতে এলাকাভিত্তিক পরিকল্পিত বনায়ন করা হবে। বাড়িভিত্তিক সবুজায়ন উৎসাহিত করা হবে। নগর পরিকল্পনায় পরিবেশকে সর্বাধিক গুরুত্ব দেওয়া হবে। নগরায়ন হবে পরিবেশবান্ধব। জমি বায়ু শব্দ দূষণের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান নেওয়া হবে।

ইস্তেহারের দ্বিতীয় দফা নগরীতে পার্ক, উদয়ন নির্মাণ প্রতিশ্রুতি দেন তালুকদার আব্দুল খালেক। এছাড়া সুবিধা জনক স্থানে একটি বড় লেডিস পার্ক ও দুটি শিশু পার্ক নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হবে এবং নদী সংলগ্ন স্থানে ভ্রমণের জন্য ওয়াকওয়ে নির্মাণ করা হবে। নগরীর দক্ষিণপ্রান্তে উপযুক্ত স্থানে বৃক্ষরোপণের মাধ্যমে বনায়ন সৃষ্টি করে পরিবেশের উন্নয়ন ঘটানো হবে। এছাড়াও ময়ূর নদীসহ নগরীর বাইশটি খাল খনন ও সংস্কার করে এর পাশে বনায়নের মাধ্যমে মনোরম পরিবেশ সৃষ্টি করা হবে।

৪০দফার মধ্যে রয়েছে- পরিচ্ছন্ন সবুজ ও পরিবেশ বান্ধব খুলনা গড়ে তোলা আর সৃষ্ট জলবদ্ধতা দূরীকরণ বিশেষ ব্যবস্থা পদ্ধতিতে ড্রেন পরিস্কার। আধুনিক বর্জ্য নিষ্কাশন ব্যবস্থাপনায় বৃক্ষ পরিচর্যা ও সংরক্ষণ। স্বাস্থ্যকর খুলনা সুলভ মূল্যের চিকিৎসা ও স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম, মাদকমুক্ত নগর গড়ে তোলা। সড়কে পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা করা। পথচারী বান্ধব ফুটপাত মানবিক উন্নয়নের খুলনা ও কর্মস্থান উপযোগী নগরী সিভিক সেন্টার গড়ে তোলা। অনুদান তহবিল মিডিয়া সেন্টার চালু ও সেবা সংবাদ পুরস্কার প্রবর্তন। কবরস্থান ও শ্মশান ঘাটের উন্নয়ন মাদ্রাসার উন্নয়ন করা। শিক্ষার্থীদের জন্য প্রতিবছর প্রতিযোগিতার আয়োজন করে স্মার্ট ডিজিটাল খুলনা নগরী গড়ে তোলা। হট লাইন নগর তথ্য কেন্দ্র চালু পরিকল্পনা প্রণয়নের পরামর্শক কমিটি গঠন করা। জলাশয় সংরক্ষণ শিশুদের সাঁতার শেখানোর বিশেষ উদ্যোগ। নগরীর বাজারগুলো আধুনিকায়ন ফোল্ডিং ট্যাক্স না বাড়িয়ে সেবার মান বৃদ্ধি। মুক্তিযোদ্ধা ও বিশিষ্ট ব্যক্তিদের নামে রাস্তার নামকরণ যাতায়াত ও ট্রাফিক ব্যবস্থা উন্নয়ন। শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়ন নারী উন্নয়ন ও অধিকার প্রতিষ্ঠান সহযোগিতা প্রদান ইত্যাদি।

মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় খুলনা প্রেসক্লাবে আড়ম্বর অনুষ্ঠানে এই ইশতেহার ঘোষণা করা হয়। ইশতেহার ঘোষণা অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক ও এস এম কামাল হোসেন কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য, পারভীন জাহান কল্পনা এসএসসি নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহবায়ক, কাজী আমিনুল হক আওয়ামী লীগ নেতা এমডি এ বাবুল রানা, এডভোকেট সুচিত কুমার অধিকারী সাবেক সংসদ সদস্য মিজানুর রহমান মিজান, আশরাফুল ইসলাম শহিদুল হক  মিন্টু, মাহবুবুল আলম এডভোকেট সাইফুল ইসলাম নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

বাই/কেএইচ/তারিখঃ ০৬০৬২৩/১৬:০৪

নিউজ শেয়ারঃ

আরও সংবাদ

জনপ্রিয় সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আলোচিত সংবাদ

নিউজ শেয়ারঃ
শিরোনামঃ
Verified by MonsterInsights