আজ ২৩শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ও ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ এবং ১৫ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

সংবিধানের বাইরে আমরা এক চুলও নড়বো না: ওবায়দুল কাদের

  • In রাজনীতি
  • পোস্ট টাইমঃ ১৮ জুলাই ২০২৩ @ ০৫:৪৬ অপরাহ্ণ ও লাস্ট আপডেটঃ ১৮ জুলাই ২০২৩@০৫:৪৬ অপরাহ্ণ
সংবিধানের বাইরে আমরা এক চুলও নড়বো না: ওবায়দুল কাদের
ছবি- ফাইল ছবি

।।নিজস্ব প্রতিবেদক।।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকার আদালতে মীমাংস হয়ে গেছে। আমাদের এক দফা সংবিধান। সংবিধানের বাইরে আমরা এক চুলও নড়বো না।

তিনি বলেন, বিএনপি পেয়েছে একটা হাঁসের ডিম। পেয়েছে একটা ঘোড়ার ডিম।আমেরিকানরা আসছিল। তারা ভেবেছিল তত্ত্বাবধায়ক সরকার কথা বলবে। শেখ হাসিনার পদত্যাগ চাইবে। কিন্তু আমেরিকানরা দিয়ে গেল ঘোড়ার ডিম। পার্লামেন্ট বিলুপ্তি হবে না। শেখ হাসিনার পদত্যাগ করবার প্রশ্নই উঠে না। গণতান্ত্রিক দেশের মত শেখ হাসিনা নির্বাচনকালীন সরকারের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করবেন।

মঙ্গলবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার ইনস্টিটিউটের সামনে শান্তি ও উন্নয়ন সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি ভেবেছিল ২০০১ সাল ও ২০০৬ সালের মত তত্ত্বাবধায়ক সরকার দিয়ে নির্বাচনে জিতে যাবে। কিন্তু এদেশে আর কোনদিন তত্ত্বাবধায়ক সরকার আসবে না। সেটা আর কোনদিন হবে না।

তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগ এদেশের মাটি ও মানুষের পার্টি। বঙ্গবন্ধুর পার্টি। একদিনে শেখ হাসিনা একশটি সেতু উদ্বোধন করেছেন। বিএনপি কি দিয়েছে। আপনাদের অন্তর জ্বালা পায়রা প্রকল্প। গাজীপুরের রাস্তাও কিছুদিনের মধ্যে উদ্বোধন হয়ে যাবে।
তিনি বলেন, বিএনপি ভুয়া ওদের আন্দোলন ভূয়া। ৭ দফা ১ দফা ভূয়া। ২০৩০ সালের মধ্যে বিএনপি নাকি দেশ ডিজিটাল করবে। এখন আর বলে না। এরা ভূয়া।

দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা গায়ে পড়ে কারো সাথে গোলমাল করবো না। আমরা বিজয়ী হবো। তারা গায়ে পড়ে ঝগড়া বাধাবে। তাদের খালি কলসি। শেখ হাসিনার কলসি ভড়া। কেউ সন্ত্রাস করলে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী আছে। নিজেরা নিজেরা কোনো সিদ্ধান্ত নেবেন। কেউ উস্কানিতে কান দেবেন না। বিশৃঙ্খলা তারা করবে যারা নির্বাচনে জিততে পারবে না।

এ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু আহমেদ মন্নাফী এবং সঞ্চালনা করছেন সাধারণ সম্পাদক মো. হুমায়ুন কবির। এতে আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা বীরবিক্রম মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া,ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, এস এম কামাল হোসেন, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, সদস্য আবদুল আউয়াল শামীম প্রমুখ।

আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা বীরবিক্রম মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেন, বিএনপি একটি সন্ত্রাসী দল। ইতোমধ্যে তারা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড শুরু করেছে। যদি নির্বাচন বানচালের চেষ্টা করা হয় আর যদি কোনো ছাত্রলীগ, যুবলীগের ওপর হামলা হয়। এর পরিনতি হবে ভয়াবহ। তাই দলীয় নেতাকর্মীদের এখন থেকে নির্বাচন পর্যন্ত মাঠে থাকতে হবে। কেউ সন্ত্রাস করলে দাঁত ভাঙ্গা জবাব দিতে হবে।

আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য এডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশে কোনো দিন আর তত্ত্বাবধায়ক সরকার আসবে না। আমরা কারো সাথে পায়ে পাড়া দিয়ে ঝগড়া করতে চাই না। কেউ শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়ন ও অগ্ৰযাত্রাকে বাঁধাগ্ৰস্থ করতে চাইলে আমরা দাঁত ভাঙ্গা জবাব দেবো।

ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন বলেন, বিএনপি জামায়াতের যে কোনো ধরনের সহিংসতার দাঁত ভাঙ্গা জবাব দেবো।

নিউজ শেয়ারঃ

আরও সংবাদ

জনপ্রিয় সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আলোচিত সংবাদ

নিউজ শেয়ারঃ
শিরোনামঃ
Verified by MonsterInsights